কিভাবে উইন্ডোজ ৭ সেটাপ দিতে হয়?

বাংলাদেশের উইন্ডোজ সেভেন বন্ধ হয়ে গিয়েছিল January 14, 2020 সালে কিন্তু বাংলাদেশের অনেক পরিমাণে মানুষ এখনো পর্যন্ত উইন্ডোজ সেভেন ব্যবহার করে। কারন এক সময় উইন্ডোজ সেভেন খুব বেশি মাত্রায় জনপ্রিয় হয়েছিল এবং নতুন যারা কম্পিউটার জগৎ এ আসছিল অথবা নিজেদের কাজের কারণে কম্পিউটার শিখছিল তখন তারা উইন্ডোজ টেন নিয়ে কাজ করা শুরু করে এবং এটাতে কম্ফোর্টেবল ও হয়ে যায়। এখনও বাংলাদেশের অনেক বড় বড় অফিসের অফিশিয়াল কাজ গুলো উইন্ডোজ সেভেন এর মাধ্যমে করা হয় কারন এইসব কর্মচারীরা উইন্ডোজ 7 কাজ শিখেছে ।

এছাড়াও উইন্ডোজ সেভেন একটু কম কনফিগারেশন বিশিষ্ট কম্পিউটারেও খুব স্লো চলে। অন্যদিকে উইন্ডোজ এর লেটেস্ট ভার্সন উইন্ডোজ টেন একটু ভালো কম্পিউটার না হলে ব্যবহার করে মজা পাওয়া যায় না। বাংলাদেশের বেশিরভাগ কম্পিউটারই একটু নিম্নমানের তাই সেসব কম্পিউটারে উইন্ডোজ টেন এর পরিবর্তে উইন্ডোজ 7 চালানো হয়। আজকে আমি আপনাদের দেখাবো কিভাবে আপনার কম্পিউটারে উইন্ডোজ সেভেন সেটআপ দিতে পারেন।

সেটাপের জন্য কয়েকটি জিনিস লাগবে। আপনার একটা পেন ড্রাইভ লাগবে, পেনড্রাইভ বুট করার জন্য RUFUS সফটওয়্যার টি লাগবে, আর উইন্ডোজ সেভেন এর অফিশিয়াল আইএসও ফাইল টা লাগবে। নিচের লিংকে ক্লিক করার মাধ্যমে আপনি উইন্ডোজ সেভেন এর অফিশিয়াল ভার্শন ডাউনলোড করে নিতে পারবেন এটাতে এখন কোনো সিকিউরিটি আপডেট পাবেন না কেননা মাইক্রোসফট আর এটার কোনো আপডেট দেয় না। উইন্ডোজ ৭ ফাইল

 উইন্ডোজ সেভেন ডাউনলোড করে নেওয়ার পর এটিকে আপনার পেনড্রাইভে বুট করে নেবেন ।আপনার পেনড্রাইভের সাইজ অবশ্যই 8gb অথবা তার বেশি হতে হবে। মনে রাখবেন আপনার পেনড্রাইভে যেন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য না থাকায় কারণ পেনড্রাইভ করার সময় এটি ফরম্যাট হয়ে যায়

 আমার পূর্ববর্তী পোস্ট পড়ে আপনি দেখতে পারেন যে কিভাবে আপনি আপনার পেনড্রাইভকে বুটেবল করবেন ওই একই পদ্ধতিতে আপনি আপনার উইন্ডোজ সেভেনের আই এস ও ফাইল দ্বারা আপনার পেনড্রাইভকে বুট করে নিবেন.

পেনড্রাইভ টি আপনার কম্পিউটারে সংযুক্ত থাকা অবস্থায় কম্পিউটার রিস্টার্ট বাটনে ক্লিক দিন। অথবা স্টার্ট মেনু থেকে পাওয়ার আইকনে ক্লিক করে রিস্টার্ট দিন। রিস্টার্ট দেওয়ার সময় আপনি মনিটর একটি সিগন্যাল দেখতে পারবেন খুব অল্প সময়ের জন্য তখন আপনি আপনার কি-বোর্ডের delete অথবা F2 বাটন প্রেস করুন। বিভিন্ন কম্পিউটারের ক্ষেত্রে বিভিন্ন রকম কী প্রেস করে BIOS এ যেতে হয়। যাই হোক এখানে প্রধান উদ্দেশ্য হলো কম্পিউটারের BIOS এ যাওয়া। আপনার কম্পিউটারে কিভাবে BIOS এ যেতে হয় তা জানতে হলে আপনার মাদারবোর্ডের মডেল সহ BIOS লিখে সার্চ দিন আপনি পেয়ে যাবেন কিভাবে আপনার নির্দিষ্ট কম্পিউটারের জন্য BIOS এ কিভাবে যাবেন।

BIOS এ যাওয়ার পর আপনি অ্যাডভান্স অপশনে যাবেন সেখান থেকে বুট অপশন এ যাবেন তারপর আপনার পেনড্রাইভটি প্রাইমারি বুট অপশন হিসেবে সিলেক্ট করবেন। এতে আপনার কম্পিউটারটি আপনার বুটেবল পেনড্রাইভ থেকে উইন্ডোজ এর সমস্ত ডাটা নিয়ে নেবে এবং সেই ডাটাতে বুট করবে। এরপর আপনাকে কয়েকটা অপশন সিলেক্ট করতে হবে যেমন কোন ডিস্ক এর কোন ড্রাইভে আপনি উইন্ডোজ ইন্সটল করতে চান এছাড়া আপনি ডিফল্ট অপশন গুলো তেও ইন্সটল করতে পারেন কিংবা কাস্টমাইজ ভাবে নিজের মত করে উইন্ডোজ ইনস্টল করতে পারেন। উইন্ডোজ ইন্সটল করা খুবই সহজ নেক্সট নেক্সট বাটনে ক্লিক করলেই উইন্ডোজ ইন্সটল হয়ে যায়। এর জন্য আপনার কাউকে লাগবে না আপনি নিজেই করতে পারবেন

আরো পড়ুনঃ

আশা করি আজকের পোষ্ট থেকে কিছু শিখতে পেরেছেন যদি শিখতে পেয়ে থাকেন তো কমেন্টে জানান। আর যদি কোন সমস্যার সম্মুখীন হন তো কন্টাক্ট পেজে আমাদের সাথে কন্টাক্ট করুন।

Sourov Biswashttp://bongofix.com
টেকনলজি কে ভালোবাসি। আর নিজে যা জানি তা অন্যকে শেখাতে ভালোবাসি

Related Articles

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

আমাদের ফলো করুন

532লাইকমত
2,005ফলোয়ারঅনুসরণ করা
715ফলোয়ারঅনুসরণ করা

সাম্প্রতিক পোস্ট